মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া কারাবন্দি যুবদল নেতার বাড়িঘর,ভাংচুর-লুটপাট

Estimated read time 1 min read

ডিসেম্বর,২৩,২০২৩

গজারিয়া (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় কারাবন্দি এক যুবদল নেতার বাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটেছে। হামলাকারীরা হোসেন্দী দক্ষিণপাড়া এলাকায় যুবদল নেতার বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট চালিয়ে চলে যাওয়ার সময় একাধিক স্থানে আগুন ধরিয়ে দেয়। পূর্ব শত্র“তার জের ও রাজনৈতিক কারণে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি পরিবারের। কারাবন্দি ওই যুবদল নেতার নাম মাসুম মিয়া। তিনি জাতীয়তাবাদী যুবদল গজারিয়া শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক। নাশকতার মামলায় পুলিশের হাতে আটক হয়ে গত ১৫ দিন ধরে কারাগারে রয়েছেন তিনি।

যুবদল নেতার স্ত্রী নাজমীন বেগম জানান, বিভিন্ন কারণে আমার স্বামীর সঙ্গে প্রতিবেশী প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা আক্তার হোসেনের ভাই মাহবুব মিয়া ও শাহ পরানের বিরোধ। ৬ ডিসেম্বর নাশকতার মামলায় আমার স্বামী ও তার ছোট ভাই জসিমকে আটক করে পুলিশ। তারা কারাগারে থাকার সুযোগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শাহ পরানের নেতৃত্বে অন্তত ৪০-৫০ জন আমাদের বাড়িতে হামলা করে। তারা দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে আসবাবপত্র ভাঙচুর করে। পরে টাকা, স্বর্ণালংকার ও মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। যাওয়ার সময় বাড়ির নিচতলার সোফা ও পর্দায় আগুন লাগিয়ে দেয়।

যুবদল নেতার ছোট ভাই ওয়াসিম আকরাম বলেন, আমি ছাত্রদলের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। ওদের হামলার টার্গেট ছিলাম আমি। বৃহস্পতিবার বিকালে নদীপথে মুন্সীগঞ্জ সদর থেকে গজারিয়ায় আসার পথে হোসেন্দী এলাকায় তারা আমার অপেক্ষায় ছিল। তারা অস্ত্র নিয়ে নদীর পারে আমার জন্য অপেক্ষা করছে এমন খবর পেয়ে আমি কৌশলে তাদের হাত থেকে রক্ষা পাই। আমাকে না পেয়ে সন্ধ্যায় তারা আমাদের বাড়িতে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। আমার বড় ভাইয়ের ছেলে কৌশলে জানালার ফাঁক দিয়ে হামলার কিছু অংশ ভিডিও করে রেখেছে। পুলিশের হাতে আটক হওয়ার ভয়ে আমরা অভিযোগ করতে থানায় যেতে পারছি না।

বিষয়টি জানতে শাহ পরানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিচ্ছিন্ন একটি ঘটনায় শুনেছি একজন অটোচালককে মারধর করা হয়েছে। তবে আমার লোকজন কারও বাড়িতে হামলা করেছে এরকম কোনো ঘটনা আমার জানা নেই।

এ ব্যাপারে গজারিয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মহিদুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে রাতেই আমরা ঘটনাস্থলে ছুটে যাই। ভাঙচুরের সত্যতা পাওয়া গেছে। বিষয়টি আমি আমার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।

হামলার বিষয়ে মুন্সীগঞ্জ সদর-গজারিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খায়রুল হাসান বলেন, এরকম একটা খবর আমি পেয়েছি। আমি সরেজমিন ঘটনাস্থলে যাব। তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

www.bbcsangbad24.com

আরও দেখুন আমাদের সাথে......

More From Author